1. admin@thedailyajkal.com : TARIP : MAHMUDUL HASAN TARIP
  2. newsdailyajkal@gmail.com : MAHMUDUL HASAN TARIP : MAHMUDUL HASAN TARIP
মঙ্গলবার, ১৮ জুন ২০২৪, ১১:৪৬ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
চলমান তাপদাহে অগ্নি দুর্ঘটনা এড়াতে ব্যাবসায়ীদের সাথে ইউএনও’র সচেতনতামূলক সভা রাণীশংকৈলে ভ্রাম্যমাণ আদালতে ২ বালু ব্যবসায়ীকে ১৫ দিনের কারাদন্ড শ্রমিক লীগ নেতার গলায় ফাঁস নেওয়া অবস্থায় ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার রাণীশংকৈলে দুই ইটভাটা মালিককে ভ্রাম্যমান আদালতে জরিমানা রাণীশংকৈলে উপজেলা নির্বাচনে ৩ পদে ১৩ প্রার্থীর মনোনয়নপত্র দাখিল ট্রাইকো কম্পোস্ট সারে সাফল্য কোকোডাস্ট পদ্ধতিতে চারা উৎপাদনে সাফল্য মালচিং পেপার পদ্ধতিতে সবজি চাষ করে কৃষক অধিক লাভবান রাজবাড়ীতে দাঁড়িয়ে থাকা পাট বোঝাই ট্রাকে, গ্যাস বহনকারী ট্রাকের ধাক্কা, নিহত ১ আমাদের হোসেনপুর ফেইসবুক গ্রুপের ঈদ পূর্ণমিলনী

কলাপাড়ায় টোকেন বানিজ্যে দিশেহারা মোটরসাইকেল ও অটো রিক্সা চালক

  • আপডেট সময় : মঙ্গলবার, ৬ ফেব্রুয়ারি, ২০২৪
  • ৭৭ বার পঠিত

কলাপাড়া প্রতিনিধি :
টোকেন বানিজ্যে দিশেহারা হয়ে দিন পার করছেন উপজেলার নীলগঞ্জ ও বালিয়াতলী ইউনিয়নের মোটরসাইকেল ও অটোরিকশা চালক। উপজেলায় চলছে অটো মালিক সমিতি সিন্ডিকেটের অবৈধ টোকেন বানিজ্য। আর এই সিন্ডিকেটের অবৈধ টোকেন বানিজ্যে এখন দিশেহারা সাধারণ মোটরসাইকেল ও অটোচালকরা। কোন ক্রমেই যেন এই রক্তচোষা সিন্ডিকেট এর ভয়ঙ্কর থাবা থেকে মুক্তি মিলছেনা সাধারন অটো চালকদের।
অভিযোগ রয়েছে, এই অবৈধ টোকেন সিন্ডিকেট বানিজ্যের সদস্যরা কিছু অসাধু ট্রাফিক বিভাগের কর্মকর্তাদের সাথে আঁতাত করে সাধারন অটোচালকদের ফাঁদে ফেলে টোকেন নিতে বাধ্য করছে। টোকেন প্রতি দু’শ থেকে তিন’শ টাকা করে নিচ্ছে। আর মাস শেষে হাতিয়ে নিচ্ছে হাজার হাজার টাকা।

বালিয়াতলীর একাধিক অটোরিকশা চালকরা বলেন, স্থানীয় ভাবে এক জনকে দিয়ে ট্রাফিকের দায়িত্ব পালন করায় তিনি আমরা জখন কলাপাড়া থেকে যাত্রী নিয়ে আসি তখন তিনি আমাদের গাড়ি র গতিরোধ করে যাত্রী নামিয়ে তাদের নির্ধারিত গাড়িতে উঠিয়ে দেন। এবং অশ্লীল ভাষায় গালি দেন। আমরা এই খাই খাই কর্মকাণ্ড থেকে মুক্তি পেতে চাই। আমাদের দাবি কলাপাড়ায় কোন সিরিয়াল চাইনা, গোডাউন ঘাট থেকে বাবলাতলা পর্যন্ত রোড মুক্ত চাই।

সূত্রে জানাগেছে, এই অবৈধ টোকেন সিন্ডিকেট বানিজ্যের মূলহোতা কলাপাড়ার আলাউদ্দিন ও বালিয়াতলীর এইচ এম বেল্লাল এবং জাফর।

বালিয়াতলী ইউনিয়নের জাফর জানান, আমি চলতি বছরে দায়িত্ব নিয়েছি,এর আগে ছিলো বশির তিনি টাকা উঠাইতো। আপনি সভাপতির সাথে কথা বলেন তিনি সব কিছু জানে।

তবে কলাপাড়া থানা অফিসার ইনচার্জ ওসি মোহাম্মদ আলী আহমেদ জানান বিষয়টি আপনার মাধ্যমে জেনেছি, খোঁজ নিয়ে যারা এই অপকর্ম সাথে জড়িত আছে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

কলাপাড়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. জাহাঙ্গীর হোসেন বলেন, এই বিষয়টি ক্ষতিয়ে দেখবো এবং দ্রুত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Facebook Comments Box
এই জাতীয় আরও খবর

ফেসবুকে আমরা

© স্বত্ব সংরক্ষিত © ২০২৩ দৈনিক আজকাল

Theme Customized By Shakil IT Park